২৫ এপ্রিল ২০১৭ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৫ম বর্ষ ৩৩শ সংখ্যা: বার্লিন, শনিবার ১৩অগা - ১৯অগা ২০১৬ # Weekly Ajker Bangla – 5th year 33rd issue: Berlin, Saturday 13 Aug – 19 Aug 2016

রিও অলিম্পিকে অমরত্বের পথে ‘গতি দানব’ বোল্ট

বোল্ট মানে বিদ্যুৎ

প্রতিবেদকঃ ডিডাব্লিউ তারিখঃ 2016-08-15   সময়ঃ 02:45:44 পাঠক সংখ্যাঃ 264

এটাই শেষ অলিম্পিক তাঁর৷ তাই হয়ত নতুন ইতিহাস গড়ায় প্রত্যয়ীও ছিলেন বেশি৷ টানা তৃতীয়বার ১০০ মিটার স্প্রিন্টের সোনা জিতে তাঁর বাকি দুটো ইভেন্টের জন্যও বিশ্ববাসীকে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন ইউসেইন বোল্ট৷> ডিডাব্লিউ

রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে প্রত্যাশিতভাবেই সোনা জিতেছেন ইউসেইন বোল্ট৷ আবারও অলিম্পিক গেমসের দ্রুততম মানব হতে জ্যামাইকার ‘গতিদানব’ সময় নিয়েছেন ৯.৮১ সেকেন্ড৷ নিজের গড়া ৯.৫৮ সেকেন্ডের বিশ্বরেকর্ড ভাঙতে পারেননি, তবে বেইজিং ও লন্ডন অলিম্পিকের পর রিও ডি জানিরোতেও একরকম হেলাফেলা করেই ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্টটি জিতে ঠিকই নতুন ইতিহাস গড়ে ফেলেছেন বোল্ট৷ এই প্রথম ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সোনা জয়ের হ্যাটট্রিক দেখল অলিম্পিক গেমস৷

অলিম্পিক ইতিহাসে অন্য কোনো ইভেন্টেও আর কেউ তিন আসরে সোনা জিততে পারেননি৷ ১০০ মিটারে সোনা জয়ের ‘হ্যাটট্রিক’ করেই অবশ্য বোল্ট থামছেন না৷ এখন রিও অলিম্পিকে আরও দুটি স্বর্ণ পদক জিতে ‘অমরত্ব’ পাওয়ার লক্ষ্যের দিকেই ছুটছেন তিনি৷ আর সেটা দেখার জন্য বিশ্ববাসীকে প্রস্তুতও থাকতে বলেছেন৷ বোল্ট বলেছেন, ‘‘একজন আমাকে বলেছেন, আমি অমর হয়ে থাকব৷ আর মাত্র দুটি ইভেন্ট এবং আশা করি আমি তা পারব৷’’

অলিম্পিকের ট্র্যাকে ব্যক্তিগত কোনো ইভেন্টে এর আগে আর কেউ টানা তিনটি স্বর্ণ জিততে পারেননি৷ ২০০৮ সালে বেইজিং ও ২০১২ সালে লন্ডনে ১০০, ২০০ ও ৪x১০০ মিটার রিলেতে জয়ী বোল্টের অলিম্পিকে মোট স্বর্ণপদক ৭টি৷ এই আসরে ২০০ আর ৪x১০০ মিটারের সোনা জিতলে পূর্ণ হবে ঐতিহাসিক ‘ট্রিপল ট্রিপল’৷

বোল্ট ফেব্রুয়ারিতেই ঘোষণা দিয়েছিলেন ২০১৭ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পর অবসর নেবেন৷ তাই রিও ডি জানিরো’র এই আসর হতে যাচ্ছে বোল্টের শেষ অলিম্পিক৷ আগামী বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে ২০০ মিটার দৌড়ের ফাইনাল৷

 

রিও গেমসের দশম দিনে রোববার আসরের সবচেয়ে প্রতীক্ষিত ইভেন্ট ছিল ১০০ মিটার স্প্রিন্ট৷ দৌড় শুরুর পর পুরো গ্যালারির দর্শক ‘বোল্ট, বোল্ট’ বলে চিৎকার করছিলেন৷ আর তাতেই হয়ত জোরটা আরো বেড়ে যায় গতি দানবের৷ শুরুতে এগিয়ে থাকা ২০০৪ সালের এথেন্স অলিম্পিকের সোনাজয়ী গ্যাটলিনকে ছাড়িয়ে যান জ্যামাইকার এই দ্রুততম মানব, ছুঁয়ে ফেলেন চূড়ান্ত সীমা৷

সেমিফাইনালে অনায়াসে দৌড়ে ৯.৮৬ সময় নিয়ে বোল্ট ফাইনালে ওঠায় বোঝা গিয়েছিল ফিটনেস নিয়ে কোনো সমস্যা আপাতত নেই৷ তবে ফাইনালের শুরুতে অনেকটাই পিছিয়ে ছিলেন৷ দৌড় শেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের স্প্রিন্টার গ্যাটলিন সম্পর্কে বোল্ট বলেন, ‘‘সে আসলেই দুর্দান্ত৷ আমি তার মতো শুরুতেই এত দ্রুত দৌড়াতে পারিনা৷ তাই জিততে পেরে আমি ভীষণ খুশি৷’’

 

তবে রুপা জেতা গ্যাটলিনকে দর্শকদের দুয়ো দেওয়াটা বোল্ট মেনে নিতে পারেননি, বলেছেন, ‘‘আমি অবাক হয়েছিলাম৷ এই প্রথম আমি এমন একটি স্টেডিয়ামে, যেখানে দর্শকরা কাউকে দুয়ো দিয়েছে৷ এটা ভয়ংকর৷’’

অন্যদিকে বোল্ট প্রসঙ্গে গ্যাটলিন বলেন, ‘‘বোল্টকে আমি শ্রদ্ধা করি, কারণ সে ভীষণ ঠাণ্ডা মাথার একজন মানুষ৷ সে একজন ভালো প্রতিদ্বন্দ্বী৷ আমার ভালো পারফর্মেন্সে তাই তার অবদানও রয়েছে৷’’

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না। ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। আপনিও কি তাই মনে করেন?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ