২৮ এপ্রিল ২০১৭ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৬ষ্ঠ বর্ষ ০৪র্থ সংখ্যা: বার্লিন, রবিবার ২২ জানু –২৮ জানু ২০১৭ # Weekly Ajker Bangla – 6th year 04th issue: Berlin, Sunday 22 Jan–28 Jan 2017

‘অনেক ছেলে-মেয়েই সারারাত পর্নো দেখে'

দেশি চটি বই থেকে বিদেশি ‘প্লেবয়’

প্রতিবেদকঃ ডিডাব্লিউ তারিখঃ 2017-01-22   সময়ঃ 02:56:18 পাঠক সংখ্যাঃ 240

‘পর্নোগ্রাফি' বিষয়টি ডয়চে ভেলের পাঠকদের বেশ ভাবালেও, মতামত জানাতে বা আলোচনা করতে তাঁরা তেমন আগ্রহী নন বলেই মনে হয়েছে৷ তবুও যাঁরা মতামত জানিয়েছেন, তাঁদেরকে ধন্যবাদ৷> DW

পাঠক অরণ্য সৌভিক মনে করেন, পর্নো দেখাটা শুধু বয়সের ব্যাপার৷ তাঁর নিজের বয়স ৩০ থেকে ৩৫-এর মধ্যে৷ তিনি ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘আমি বা আমার সমবয়সি বন্ধু-বান্ধব কেউ আর পর্নো দেখতে আগ্রহী নই৷ আমরা মনে করি, আমাদের ঐ বয়স পার হয়ে গেছে৷ তবে হ্যাঁ, এটা সত্যি যে আমরা সবাই একবার হলেও পর্নো ছবি দেখেছি৷''

পাঠক ওমর ফারুকের ধারণা, বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি পর্নো দেখে ১২ থেকে ২০ বয়সিরা৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘ওরা দোকান থেকে ১০ টাকায় এক জিবি....এনে সারারাত ধরে দেখে৷'' 

পুরনো বন্ধু এমএ বারিক অরণ্যর সাথে পুরোপুরি একমত৷ তিনি মনে করেন, এই যুগে এটা একটা স্বাভাবিক ব্যাপার৷

পাঠক সেতুর মতে, এখন বড়রা পর্নো বিশেষ না দেখলেও ছোটরা পর্নোগ্রাফিতে বেশি ঝুঁকছে৷ তবে তিনি লক্ষ্য রেখেছেন যে, অনেক পর্নো ইন্টানেটসাইট এখন বেশ কিছুদিন থেকে বন্ধ৷ আর এ সম্পর্কে সেতুর মন্তব্য, ‘‘খুব ভালো হয়েছে বন্ধ করে৷''

পর্নো বিষয়ক লেখা বা এ বিষয়ে কথাবার্তা বলাটাই পাঠক পরিনীতা দাশের কাছে ভিতিকর৷ গৌতম বর্মনও পরিনীতার সাথে একমত প্রকাশ করেছেন৷

অন্যদিকে ডয়চে ভেলের পাঠক শেখ মনিরের কাছে পর্নো বিষয়ক কোনো আলোচনাই ভালো লাগে না, লাগেনি৷

দেশি চটি বই থেকে বিদেশি ‘প্লেবয়’

একটা সময় পর্যন্ত ঢাকায় তো বটেই, দেশের প্রায় সব মফঃস্বল শহরেও গোপনে বিক্রি হতো ‘চটি বই’৷ আদিরসাত্মক গল্পের সেই বইগুলো লেখা হতো ছদ্মনামে৷ চটি বইয়ের বাইরে ‘জলসা’, ‘নাট্যরাজ-’এর মতো নিরীহ নামের কিছু ‘পিনআপ’ ম্যাগাজিনও ছিল, যেগুলো প্রকাশের উদ্দেশ্যই ছিল নারীদেহ এবং যৌনকর্মের পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনা দিয়ে পাঠক মনে যৌন উদ্দীপনা জাগানো৷ এছাড়া বড় শহরগুলোয় ‘প্লেবয়’ ম্যাগাজিনও পাওয়া যেত৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার, সম্পাদনা: দেবারতি গুহ



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না। ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। আপনিও কি তাই মনে করেন?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ