২২ আগস্ট ২০১৮ ইং

বার্লিনের মঞ্চে তাক লাগিয়ে দিচ্ছেন প্রতিবন্ধী অভিনেতারা

তাঁদের অভিনয় ক্ষমতা সবার নজর কাড়ছে

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-07-28   সময়ঃ 02:42:57 পাঠক সংখ্যাঃ 25

আমাদের সমাজে প্রতিবন্ধীদের নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়৷ বার্লিনে এক থিয়েটারে প্রতিবন্ধীরা বাকিদের সঙ্গে নাটকের মঞ্চায়ন করে তাক লাগিয়ে দিচ্ছেন৷ তাঁদের অভিনয় ক্ষমতা সবার নজর কাড়ছে৷

বার্লিনের রাম্বাসাম্বা থিয়েটারে হেরমান মেলভিলের লেখা ‘মবি ডিক' উপন্যাসের মঞ্চায়ন চলছে৷ মৃত্যু, উন্মাদনা ও এক সাদা তিমির কাহিনি৷ কুশিলবদের মধ্যে কয়েকজনের ডাউন সিন্ড্রোম রয়েছে৷

থিয়েটারের প্রধানের নাম ইয়াকব হ্যোনে৷ তাঁর ভাই মরিৎস-এর ডাউন সিন্ড্রোম রয়েছে৷ মরিৎস থিয়েটারের তারকাদের অন্যতম৷ ১৯৯০ সালে এই থিয়েটার প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল৷

ডাউন সিন্ড্রোম এক জন্মগত অবস্থা৷ এর ফলে শরীর ও বোধশক্তির ক্ষেত্রে নানা রকম দুর্বলতা দেখা দিতে পারে৷ ইয়াকব হ্যোনে বলেন, ‘‘আসল বিষয় হলো, ডাউন সিন্ড্রোম থাকলে মানুষের নিজস্ব শৈল্পিক অভিব্যক্তি দেখা যায়৷ তারা যেভাবে কোনো চরিত্রকে তুলে ধরে, আমি হয়তো সেভাবে করবো না৷ তাদের সময়জ্ঞান ও আইডিয়া আলাদা৷ আমি হয়ত ভাষার মাধ্যমে কিছু একটা প্রকাশ করবো৷ অন্যদিকে প্রতিবন্ধী অভিনেতা অঙ্গ সঞ্চালনের মাধ্যমে সেই কাজ করবে৷''

 

সাধারণ তিমি শিকার অভিযান হিসেবে সূচনা হলেও কাহিনিটি প্রতিশোধের মারাত্মক আকাঙ্খায় মোড় নিচ্ছে৷ ২০১৫ সাল থেকে ইয়োনাস সিপেল এই নাট্যদলের সঙ্গে রয়েছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘অভিনয় এমন এক শক্তি, যা ডাউন সিন্ড্রোমসহ মানুষের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ থিয়েটারের অনেক সদস্য ঠিকমতো কথাও বলতে পারে না৷ তারা একমাত্র অভিনয়ের মাধ্যমে নিজেদের আবেগ-অনুভূতি প্রকাশ করতে পারে৷''

জার্মানিতে ডাউন সিন্ড্রোম থাকলে বাকি তরুণ-তরুণীদের মতো সুযোগ পাওয়া কঠিন৷ ফ্ল্যাট শেয়ার করে থাকারও তেমন উপায় নেই৷ ইয়োনাস সিপেল-এর ভাগ্য ভালো ছিল৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ভালোবাসি৷ তাদের সঙ্গে কথা বলা, একসঙ্গে কাজ করতে চাই৷ আমি খুব মিশুকে৷ কবিতা লিখতে ভালোবাসি৷ অভিনয় ও শিল্পকলায়ও আগ্রহ রয়েছে৷ সবাই যে সমান নয়, তা স্পষ্ট করে দিতে আমাদের অবশ্যই সংগ্রাম চালাতে হয়৷ তা না হলে বৈচিত্র্য থাকবে না৷ আমাদেরও অধিকার রয়েছে৷''

রাম্বাসাম্বা ২৭ বছর ধরে প্রতিবন্ধীদের সমাজের মূল স্রোতে আনার উদ্যোগ চালাচ্ছে৷ মবি ডিক-সহ বিভিন্ন নাটকে অন্যান্য গ্রুপের অভিনেতারাও অংশ নেন৷ যেমন বরিস ইয়াকোবি৷ তিনি বলেন,  ‘‘একবার আমার রিহার্সাল দেখার ইচ্ছা হয়েছিল৷ সকালে তা দেখে দুপুরেই আমি যোগ দিলাম৷ অভিনেতাদের অসাধারণ প্রাণশক্তি আমাকে আকর্ষণ করছিল৷ সাজানো নয়, নিজের ক্ষমতা নিয়ে সংশয়ের বালাই নেই৷ আমাদের মধ্যে অমিলের চেয়ে মিলই বেশি৷''

মবি ডিক নাটকে নাচ ও শারীরিক কসরতের দৃশ্যের জন্য স্পেন থেকে দু'জন নৃত্য পরিচালককে আনা হয়েছে৷ তাঁরাও বলেছেন, যে প্রতিবন্ধী অভিনেতাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার রয়েছে৷ তাঁদেরই একজন সারা লু৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের মতো তাদের কোনো ফিল্টার নেই৷ যেমন আমরা বলি, এটা করতে পারবো না৷ অথচ ওরা কত মুক্ত মনের অধিকারী৷''

সমাজে সব রকম মানুষের সহাবস্থানের পথ আজও দীর্ঘ৷ কিন্তু রাম্বাসাম্বা নিজস্ব লক্ষ্যে অবিচল রয়েছে৷

ভিবকে ফয়ারসেঙার/এসবি



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ